March 23, 2019     Select Language
Editor Choice Bengali KT Popular রোজনামচা সফর

২২ হাজার অদৃশ্য মানুষের এক দেশ

1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars (No Ratings Yet)
Loading...

কলকাতা টাইমস : 

২ হাজার অদৃশ্য মানুষের এক দেশ। উত্তর আমেরিকার দক্ষিণে অবস্থিত রহস্যময় সেই এক জনপদ।  মোটামুটি সবাই জানে, ২০০৬ সাল থেকে মেক্সিকোয় মাদক ব্যবসায়ীরা সরকারি বাহিনীর টার্গেটে পরিণত হয়।

সুগঠিত সশস্ত্র নেটওয়ার্ক আর সর্বাধিক অর্থ লেনদেনের কারণে কোন দেশের সরকারি বাহিনীই তাদের বিরুদ্ধে খুব বেশি সুবিধা করতে পারেনি। ২০০৬ সালে শুরু হয়ে ওই দুই পক্ষের লড়াই চলছে আজো এবং অসংখ্য যুদ্ধের মতো সে লড়াইয়েরও বলি হয়ে চলেছে সাধারণ মানুষ। ২০০৬ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত কতজন মানুষ নিখোঁজ হয়েছেন তার একটি তালিকা সম্প্রতি প্রকাশ করেছে মেক্সিকো সরকার। এতে যে সংখ্যাটি বেরিয়ে এসেছে তা রীতিমতো অকল্পনীয় এবং সত্যের কাছাকাছি।
সত্যের কাছাকাছি এ জন্যই বলা হয়েছে যে, মূল সংখ্যাটি হয়ত আরো বেশি। সরকারি হিসাব মতে, এ যাবৎ নিখোঁজ হয়েছেন  ২২ হাজার ৩২২ জন মানুষ। এ তথ্য প্রকাশ করেছেন মেক্সিকো প্রশাসনের সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মারিয়ানা বেনিতেজ। ২০০৬ সালে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি ফেলিপে ক্যালডেরন দেশের মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেন। এমনিতেই বেশ আগে থেকেই দেশটি মাদক মাফিয়ার সঙ্গে ভালোভাবে যুক্ত।
তবে ওই মুহূর্তে মাদকের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছিল মাদক ব্যবসায়ীদের জন্য। ফেলিপে ক্যালডেরন দেশের সেনাবাহিনীকে ব্যবহার করতে শুরু করেন চোরাচালানকারীদের বিরুদ্ধে। অস্ত্রশস্ত্রে মাদক ব্যবসায়ীরা সরকারি বাহিনীর চেয়ে যেহেতু কোন অংশেই কম ছিল না, যুদ্ধও জমে উঠেছিল, লাশ পড়তে থাকলো, নিখোঁজ মানুষের সংখ্যা বাড়তে থাকলো, বেড়ে গেল চোরাগোপ্তা হামলা।
যুদ্ধ সারাদেশে জালের মতো ছড়িয়ে পড়লো এবং সাধারণ মানুষ খুব সহজে সাধারণ শিকারে পরিণত হলো। ২০০৬ থেকে ’১২ পর্যন্ত ফেলিপে ক্যালডেরনের ক্ষমতাকালীন সময়ে নিখোঁজ হন ১২ হাজার ৫৩২ মানুষ। প্রাথমিকভাবে পরিসংখ্যান বলছিল, নিখোঁজের সংখ্যা ২৯ হাজার ৭০৭ জন। কিছুদিনের মধ্যে কারো কারো খোঁজ মিললেও বেশির ভাগ ক্ষেত্রে জানা যায় মৃত্যুসংবাদ। সংখ্যাটি তখন ১২ হাজার ৫৩২-এ নেমে আসে।
২০১২ সাল থেকে মেক্সিকোর রাষ্ট্রপতির ভার গ্রহণ করেন এনরিক পেনা নিয়েতো। তার দু’বছরের শাসনামলে তুলনামূলক আরো বেশি মানুষ নিখোঁজ হতে থাকেন। সরকারি পরিসংখ্যান থেকে জানা যায়, বর্তমান রাষ্ট্রপতির শাসনামলে ৯ হাজার ৭৯০ নিখোঁজ মানুষের মধ্যে মে মাসেই নিখোঁজ হয়েছেন ৮ হাজার মানুষ।
১ ডিসেম্বর, ২০১২ থেকে ৩১ জুলাই, ২০১৪ পর্যন্ত মূলত নিখোঁজ সংবাদ পাওয়া যায় ২৩ হাজার ২৩৪ জনের, পরে একাংশের খোঁজ পাওয়া এবং মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার পর তার সংখ্যা নেমে আসে ৯ হাজার ৭৯০-এ।
মাদক চোরাচালানকারী বাহিনী এবং সরকারি বাহিনীর সংঘর্ষে সত্যিকার অর্থে কতজন নিখোঁজ রয়েছেন তার সঠিক হিসাব সরকারি কোন নথি থেকে জানা সম্ভব নয়। প্রায় বারো কোটি মানুষের দেশ মেক্সিকোকে সিনেমায় দেখে রীতিমতো মৃত্যুসংকুল মনে হয়, বলা যায়, সেটাই সাধারণ বাস্তবতা হয়ে উঠছে বর্তমানে।
সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মারিয়ানা বেনিতেজ এ বিপুল পরিমাণ নিখোঁজের কতজন মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে যুদ্ধে বলি হয়েছেন তার হিসাব দেখতে রাজি নন। তিনি এ হিসাবটি বিবিধ কারণে অপহৃত, রাজনীতি কিংবা দুর্নীতির কারণে পলাতক এবং সাধারণভাবে মৃত্যুবরণকারীর সংখ্যা হিসেবেই দেখতে চাচ্ছেন। শাসকপক্ষের প্রতিনিধি হিসেবে তার জন্য সেটিই স্বাভাবিক।

Related Posts

Leave a Reply