April 23, 2019     Select Language
Editor Choice Bengali KT Popular শারীরিক

মাত্র দুটি সবজি আর স্কিন ক্যান্সার শত দূরে 

1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars (No Ratings Yet)
Loading...

কলকাতা টাইমস : 

সূর্যের অতি বেগুনি রশ্মির কারণে ত্বকের ক্যান্সার হয়, সকলেরই জানা। তাই রোদ থেকে গা বাঁচতে ছাতা, সানস্ক্রিন আরও কত কি ব্যবহার করি আমরা। অথচ প্রচুর পরিমাণে সবজি খেলে এ ক্যান্সার ঝুঁকি আপনি কমাতে পারেন ৫৫ শতাংশ পর্যন্ত!

অস্ট্রেলিয়ায় এক হাজার মানুষের ওপর ১১ বছর ধরে চালানো গবেষণায় দেখা গেছে, সপ্তাহে যারা কমপক্ষে নিয়মিত তিন দিন সবজি খেয়েছেন, তাদের ত্বকের ক্যান্সার ৫৫ শতাংশ কমে গেছে।

বিজ্ঞানীরা এর কারণ হিসেবে এসব সবজিতে প্রচুর পরিমাণে ক্যান্সাররোধী উপাদান থাকার কথা জানান।

তবে সবজিগুলোর মাঝে বিশেষ করে ব্রোকলি আর ফুলকপি বেশি বেশি খাওয়ার কথা বলা হয়েছে। কারণ ত্বকের ক্যান্সার রোধে এই সবজি দুটি বেশি কার্যকরি।

ফুলকপি:
পুষ্টিগুণে ভরপুর এই সবজি রোগ প্রতিরোধক হিসেবে দারুণ উপকারী। তাই খাওয়ার আগে জেনে নিন কেন খাবেন এই সবজি। ফুলকপিতে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন ও খনিজ উপাদান।

ভিটামিন এ, বি ছাড়াও আয়রণ, ফসফরাস, পটাশিয়াম ও সালফার পাওয়া যায়। ফুলকপির ডাঁটা ও সবুজ পাতায়ও রয়েছে প্রচুর ক্যালসিয়াম।

ফুলকপিতে ক্যালরির পরিমাণ অনেক কম। ক্যান্সার প্রতিষেধক হিসেবে খেতে পারেন সবজিটি। ফুলকপি ক্যান্সার সেল বা কোষকে ধ্বংস করে। এছাড়া মূত্রথলি ও প্রোস্টেট, স্তন ও ডিম্বাশয় ক্যান্সার প্রতিরোধে ফুলকপির ভূমিকা অপরিসীম।

ফুলকপিতে থাকা ভিটামিন এ ও সি শীতকালীন বিভিন্ন রোগ যেমন: জ্বর, কাশি, সর্দি ও টনসিল প্রতিরোধে কার্যকর ভূমিকা রাখে। ফুলকপির ভিটামিন এ চোখের জন্যও উপকারী।

উচ্চ রক্তচাপ, হাই কোলেস্টেরল ও ডায়াবেটিস রোগীরা ফুলকপি খেতে পারেন নিঃসঙ্কোচে। ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ ও কোলেস্টেরল কমাতেও ফুলকপি ভালো কাজ করে। ফুলকপিতে থাকা আঁশ কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে সাহায্য করে।

ব্রোকলি:
পুষ্টিগুণে ভরা ব্রোকলিতে (এক ধরনের ফুলকপি) ক্যানসার এবং হৃদপিণ্ডের বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধী উপাদান রয়েছে। তবে চলুন জেনে নেই ব্রোকলির প্রধান প্রধান স্বাস্থ্যগুণের কথা।

ব্রোকলিতে ক্যান্সার প্রতিরোধী উপাদান রয়েছে। এটি ক্রুসিফেরাস জাতীয় সবজি। এই গ্রুপের সব সবজি পাকস্থলী ও অন্ত্রের ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে।

ব্রোকলিতে দ্রবণীয় আঁশ রয়েছে, যা রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সহায়তা করে। ফটোকেমিক্যালস গ্লুকোরাফ্যানিন, গ্লুকোনাসটারটিন এবং গ্লুকোব্র্যাসিসিন উপাদান রয়েছে ব্রোকলিতে। এসব উপাদান শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ বের করে দিতে সহায়তা করে।

কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে হৃদপিণ্ড সুস্থ রাখতে সহায়তা করে। তাছাড়া, হৃদপিণ্ডের রক্তনালীকে শক্তিশালীকে করে ব্রোকলি। সালফোরাফানে উপাদান রয়েছে ব্রোকলিতে, যা প্রদাহ প্রতিরোধী হিসেবে কাজ করে।

ব্রোকলিতে যথেষ্ট পরিমাণে ভিটামিন সি ও ফ্ল্যাভোনয়েডস রয়েছে। তাছাড়া, ক্যারটিনয়েড লুটিয়েন, জিয়াজানথিন, বেটা ক্যারোটিন এবং অন্যান্য শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে।

Related Posts

Leave a Reply